সোমবার,২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
হোম / জীবনযাপন / আপনার পুরুষটির যা কিছু গোপন
০২/২০/২০১৮

আপনার পুরুষটির যা কিছু গোপন

-

নারীদের মন বোঝা যায় না বলে একটা কথা চালু আছে সারাবিশ্বে। কিন্তু পুরুষদের মনের ভেতর কী ঘটছে তা বোঝাও যে আরো জটিল ও কঠিন তা নারী মাত্রই স্বীকার করবেন। আবেগীয় বিষয়গুলো নারীরা যত সহজে প্রকাশ করে ফেলেন, পুরুষরা ঠিক ততটাই লুকিয়ে রাখতে পছন্দ করেন আবেগ। এ কারণেই যেসব বিষয় নিজের সবচেয়ে কাছের মানুষটির কাছেও পুরুষরা গোপন রাখেন সেগুলো হলোঃ

তিনি আপনাকে ভালোবাসেন
‘আমি তোমাকে ভালোবাসি’ কথাটা খুব সহজে বলেন না পুরুষরা, বরং আপনার প্রতি তার আচরণ দিয়েই এই কথাটি প্রকাশ করতে পছন্দ করেন তারা। আর মুখে কী বলছেন তার তুলনায় তিনি আপনার প্রতি কী ধরনের আচরণ পোষণ করেন তা অনেক গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন কাউন্সেলর ও মনোবিদরা।

সম্পর্কের অগ্রগতি নিয়ে ভীত তিনি
একটি সম্পর্ক কখন গভীর থেকে গভীরতর হচ্ছে তার নির্দেশকগুলো নিয়ে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অজ্ঞ পুরুষরা। এছাড়া অনেক পুরুষই সম্পর্কটিকে উপভোগ করলেও আবেগিয়ভাবে জড়িয়ে পড়তে চান না। এ কারণেই কোনো সম্পর্কের গতি তার পছন্দের চেয়ে বেশি এগিয়ে গেলে পুরুষরা পিছিয়ে যান বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

শারীরিক সম্পর্কে আপনার সন্তুষ্টি নিয়ে চিন্তিত তিনি
কোনো রোমান্টিক সম্পর্কে আবেগের চেয়ে শারীরিক সম্পর্কে পুরুষরা বেশি আগ্রহী বলে সাধারণত ধরে নেওয়া হয়। তবে শারীরিক সম্পর্কে পুরুষের আগ্রহ বেশি হলেও সঙ্গীর সন্তুষ্টি নিয়ে অনেক বেশি চিন্তিত থাকেন পুরুষর। এ ধারণা থেকে অনেক সময় শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের বিষয়ে ভয়ভীতি নিয়ে খোলাখুলি আলোচনার চেয়ে তা থেকে দূরে থাকার কৌশলকেই বেছে নেন পুরুষরা, যা কি না দু’জনের সম্পর্কেও জন্য ক্ষতিকর।

একগামী সম্পর্কের বিষয়ে খুব দৃঢ়চেতা নন তিনি
একগামী সম্পর্কের বিষয়ে খুব দৃঢ়চেতা নন পুরুষরা। রিলেশনশিপ কাউন্সেলরদের মতে স্ত্রী কিংবা সঙ্গীকে ভালোবাসলেও অন্য কোনো সম্পর্কে জড়ানোকে পুরুষরা খুব বড় সমস্যা মনে করে না। এই বিষয়ে পুরুষ আর নারীদের ধারণার এই পার্থক্য তিনি নিজে বহুগামী না হলেও দু’জনের মধ্যেকার সম্পর্ককে ধ্বংস করতে পারে।

তিনি চান আপনি নিজে থেকে শারীরিক সম্পর্কে এগিয়ে আসুন
প্রত্যেক পুরুষই শারীরিক সম্পর্কে অত্যন্ত আগ্রহী হলেও এ বিষয়ে সঙ্গী এগিয়ে আসুক তা-ই চান তারা, কারণ প্রতিটি আহ্বানের সাথেই প্রত্যাখ্যাত হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যায়। ফলে সঙ্গী নিজে থেকেই শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের আগ্রহ দেখালে তা পুরুষের জন্য সবদিক দিয়েই মঙ্গলজনক! এছাড়া সাম্প্রতিক এক গবেষণায় আরো দেখা গেছে যে, শুধু যৌনসম্পর্ক নয়, একসঙ্গে অন্তরঙ্গ সময় কাটানো নারীর চাইতে পুরুষের কাছে বেশি জরুরি।

তিনি বিষণ্ণ
বিষণ্ণতায় আক্রান্ত হওয়ার ক্ষেত্রে কোনো নারী-পুরুষ ভেদাভেদ নেই। সবচেয়ে শক্তিশালী মানুষটিও বিষণ্ণতায় আক্রান্ত হতে পারেন যে কোনো সময়। তবে গবেষণায় দেখা গেছে যে, বিষণ্ণতায় আক্রান্ত পুরুষরা নিজের দুঃখবোধ বা ক্লান্তিবোধের বিষয়ে আলোচনায় অনাগ্রহী হন। কিছু পুরুষ নিজে বিষণ্ণ বোধ করতেও এমন অস্বস্তিবোধ করেন যে তাদের হতাশা ও দুঃখ শেষ পর্যন্ত রাগের আকারে বেরিয়ে আসে। এজন্যই পুরুষের বিষণ্ণতা একটি ভয়ংকর গোপন বিষয়, এবং তা টের পেলে তার পাশে আপনিও আছেন সে বিষয়ে তাকে আশ্বস্ত করুন।

সন্দেহ ও দ্বিধা দমিয়ে রাখেন তিনি
সম্পর্কের ভবিষ্যৎ নিয়ে সব ধরনের দ্বিধা ও সন্দেহ দমিয়ে রাখেন তিনি। আর দমিয়ে রাখার ফলেই সম্পর্কের জন্য ক্ষতিকর হয়ে ওঠে এসব দ্বিধা আর সন্দেহ। কারণ এই দ্বিধার ফলেই সম্পর্কটি পরিণতির দিকে নিয়ে যেতে যথাসম্ভব বিলম্ব করেন অথবা বিয়ের ঠিক আগের সময়গুলোতে দূরে সরে থাকেন পুরুষরা।

নিজের অনুভূতিগুলোকে ভয় পান তিনি
পুরুষরা সাধারণত সব সমস্যার সমাধান নিজের কাঁধে তুলে নেন এবং নিজের অনুভূতিগুলো প্রকাশ করতে বা সেগুলো নিয়ে কথা বলতে অস্বস্তিবোধ করেন। তবে কাজেকর্মে তাদের অনুভূতিগুলো প্রকাশ পেয়ে যায়। আবেগ-অনুভূতি প্রকাশের ক্ষেত্রে যদি কেউ কোনো তীব্র বাধা বোধ করেন, তবে কাউন্সেলর বা মনোচিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া জরুরি হয়ে উঠতে পারে।

এবং সবচেয়ে গোপন যে কথাটি...
পুরুষরাও নিবিড় সম্পর্ক আকাঙ্ক্ষা করে থাকেন। পরস্পর সম্মান, বিশ্বাস, সমর্থন ও যোগাযোগ- যে কোনো সম্পর্কে এ অবশ্য পালনীয় শর্তগুলো নারীদের মানসিক ও আবেগিক স্বাস্থ্যের জন্য যেমন জরুরি, তেমনি পুরুষদের জন্যও জরুরি। গোপনীয়তা বজায় রাখা নয়, বরং এসব অবশ্য পালনীয় শর্তগুলো দুপক্ষ প্রকাশ করলে যে কোনো সম্পর্কই সুন্দর হয়ে উঠবে।

- কাজী শাহরিন হক

ছবিঃ নাঈম শান