বুধবার,১৩ ডিসেম্বর ২০১৭
হোম / বিবিধ / উকুনের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি
১১/১৩/২০১৭

উকুনের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি

-

উকুন একটি ক্ষুদ্র পরজীবী যা মানুষের মাথার ত্বক ও চুলে বসবাস করে এবং রক্ত খায়। উকুনের সমস্যায় ভুগে থাকেন অনেকে, বিশেষ করে বাচ্চারা এতে বেশি আক্রান্ত হয়। চুলের ও মাথার ত্বকের বিরক্তি ও যন্ত্রণাদায়ক সমস্যাগুলোর মধ্যে এটি অন্যতম।

প্রধানত দুটি জিনিস দেখলে আপনি বুঝবেন আপনার মাথায় উকুন আছে। এক, মাথা চুলকানো আর দুই মাথার ত্বকে লাল লাল দাগ। বাজারে বিভিন্ন উকুন নাশক শ্যাম্পু পাওয়া যায়, সেইসাথে ফার্মেসিতে পাবেন উকুন মারার বিভিন্ন ওষুধ। তবে ঘরোয়া পদ্ধতিতে কোন রকম খারাপ সাইড এফেক্ট ছাড়াই কিন্তু আপনি উকুনের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। আসুন, তবে উকুন দূর করার ঘরোয়া সমাধানগুলি জেনে নেয়া যাক।

রসুন
রসুনের গন্ধ উকুন সহ্য করতে পারে না এবং শেষ পর্যন্ত মারা যায়। ১০টি রসুনের কোয়া পেস্ট করে নিন। এর সাথে ২ থেকে ৩ চা চামচ লেবুর রস মেশান। এই পেস্টটি মাথায় লাগান এবং আধা ঘণ্টা পর গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে চার-পাঁচ দিন করলেই উকুন নাশ হবে। রসুনের পেস্টের সাথে রান্নার তেল, লেবুর রস, শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার মিশিয়ে পেস্ট করে নিতে পারেন। চুলে ভালো করে লাগিয়ে নিন। এবার টাওয়েল বা শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে পেঁচিয়ে রাখুন। আধা ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একবার, মাসে দুই তিনবার এভাবে চুল ধুয়ে নিতে পারেন।

অলিভ অয়েল
অলিভ অয়েল উকুন তাড়াতে বেশ কার্যকরী। সারারাত চুলে অলিভ অয়েল লাগিয়ে টাওয়েল বা শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে পেঁচিয়ে রাখুন, এতে মাথার ত্বকে একটি ভাপ সৃষ্টি হবে। সকালে চিরুনি করে উকুন ফেলে দিন। তারপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এতে অনেকাংশে উকুন চলে যাবে। এছাড়া হাফ কাপ অলিভ অয়েলের সাথে হাফ কাপ কন্ডিশনার এবং কিছুটা শ্যাম্পু একসাথে মাথায় লাগিয়ে ঘণ্টা খানেক অপেক্ষা করুন। তারপর চুল ধুয়ে ফেলুন। এভাবে প্রতি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন।

টি ট্রি অয়েল
টি ট্রি অয়েল প্রাকৃতিক কীটনাশক, তাই উকুন দূর করতে এটি বেশ কার্যকরী। শ্যাম্পু করার সময় শ্যাম্পুর সাথে তিন থেকে পাঁচ ফোঁটা টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি দিয়ে চুল লাগিয়ে টাওয়েল বা শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে পেঁচিয়ে রাখুন। আধা ঘণ্টা পর গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। চুল শুকিয়ে গেলে একটি চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়িয়ে নিন। দেখবেন, চিরুনিতে উকুন চলে আসছে। এটি কমপক্ষে দুই মাস ব্যবহার করুন। তবে টি ট্রি অয়েল ব্যবহারে সাবধানতা অবলম্বন করবেন, এটি অনেক বেশি শক্তিশালী।

পেট্রোলিয়াম জেলি
আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি যে পেট্রোলিয়াম জেলি চুলকে উকুনমুক্ত রাখতে বেশ কার্যকরী। মাথার ত্বকে পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে টাওয়েল বা শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে সারা রাত পেঁচিয়ে রাখুন। সকালে শ্যাম্পু করে ফেলুন। পরপর কিছুদিন ব্যবহার করুন। দেখবেন উপকার পাবেন।

লবণ
দুই টেবিল চামচের সাথে দুই টেবিল চামচ ভিনেগার মিশিয়ে নিন। তারপর এই মিশ্রণ মাথায় স্প্রে করুন, শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে দুই ঘণ্টা পেঁচিয়ে রাখে, ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিনবার এভাবে ব্যবহার করুন।

পেঁয়াজ
পেঁয়াজের রসে সালফার আছে, যা উকুন দূর করতে সাহায্য করে। ৪/৫টা পেঁয়াজের রস করে নিন। এরপর তা মাথায় ম্যাসাজ করে লাগিয়ে নিন। ২ ঘণ্টা পর কুসুম গরম পানি দিয়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন। চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ান, দেখবেন উকুন সব চিরুনিতে চলে এসেছে।

মাথায় উকুন হলে এই সমস্যা একরাতে শেষ হবার নয়। এরজন্য একটু সময় নিয়ে চেষ্টা করতে হয়। এমনকি উকুন পুরোপুরি চলে যাবার পরেও সব সময় সাবধান থাকা উচিত।

- মুশফিকুর রাহমান
ছবিঃ নাঈম শান