বুধবার,১৩ ডিসেম্বর ২০১৭
হোম / রূপসৌন্দর্য / ভ্রু-তে আনুন ন্যাচারাল সৌন্দর্য
১০/২২/২০১৭

ভ্রু-তে আনুন ন্যাচারাল সৌন্দর্য

-

মোটা-ঘন ভ্রু রাখাই এখনকার ট্রেন্ড। চোখের ভ্রু চেহারাকে নজরকাড়া করে তোলে, সাথে তারুণ্যের স্পর্শ নিয়ে আসে। ৯০ দশকের চিকন, পেন্সিলে আঁকা ভ্রুয়ের ফ্যাশন সরিয়ে জায়গা করে নিয়েছে নতুন স্টাইল। যদিও ফ্যাশন-সচেতন নারী, মডেল ও নায়িকাদের সবখানে দেখা যায় মোটা করে ভ্রু আঁকতে, প্রাকৃতিক উপায়ে পাওয়া মোটা ভ্রু এখন সবাই চান। তবে চুলের মতোই অনেকের ভ্রুও পাতলা হয়ে থাকে। হালকা ভ্রু হলে চাইলেই আপনি পারেন ফাঁকা জায়গায় এঁকে বা ভ্রুজেল ব্যবহার করে ঘন করে নিতে, তবে সব সময়ের জন্য মোটা ভ্রু চাইলে কিছু বিউটি রেজিম মেনে চলতে হবে।

ছেঁটে ফেলবেন না
এটি প্রাকৃতিকভাবে ঘন ভ্রু পাওয়ার আবশ্যক উপায়- যতটা কম সম্ভব ভ্রু ছাঁটুন। বারবার ভ্রু প্লাক করলে বা ওয়াক্স করালে চুলের স্বাভাবিক বিকাশ কমে যায়। অনেকের ভ্রু বেশি চিকন করে তুলতে তুলতে ভ্রু-এর শেপ নষ্ট হয়ে যায়। এরপর ভ্রু গজালেও সবদিকে সমানভাবে বড় হয় না, যার কারণে তা আর ঘন করা যায় না। চোখের ভ্রু সাধারণত ২-৩ মাসে ভালোভাবে বড় হয়, তাই এক দুই মাস না কাটলেই পরিবর্তন দেখা যায়।

ময়শ্চারাইজ
আপনার ভ্রু ও এর আশেপাশের এলাকা হাইড্রেটেড এবং পরিপুষ্ট থাকা খুবই দরকার, তাই প্রয়োজন ময়শ্চারাইজার বা আর্দ্রতার। আদ্রতা ধরে রাখতে সাধারণ পেট্রোলিয়াম জেলি ভালো কাজ দেয়, দিনে দুই-তিনবার লাগালে ভ্রু-র চুল বৃদ্ধি হয় খুব অল্প সময়ে। অবশ্যই ময়শ্চারাইজার লাগানোর আগে মুখ ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। রাতের বেলা পুরো ভ্রুতে বা ভ্রু কম আছে এমন জায়গায় ভ্যাসলিন লাগিয়ে ঘুমোলে ধীরে ধীরে ভ্রু-এর ঘনত্ব বাড়বে। তবে ভ্যাসলিন বা পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে রোদে বের হওয়া উচিত নয়।

তেল ম্যাসেজ
তেল যেভাবে চুলের জন্য কাজ করে, এটি ঠিক সেভাবেই আপনার ভ্রু-কেও পরিপুষ্ট করে তোলে। ঘুমানোর আগে একটি কটন বলে জলপাই, বাদাম, ক্যাস্টর বা নারকেল তেলে ডুবিয়ে ভ্রু-তে হাল্কাভাবে ম্যাসাজ করে নিন। প্রতিদিন অলিভ অয়েল দিয়ে ম্যাসাজ করলে ভ্রু মোটা ও ঘন হয়। এছাড়া নারকেল তেলের সাথে খোসা ছাড়ানো পাতলা করে কাটা লেবুর অংশ সারারাত ভিজিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে সেই মিশ্রণ লাগালে নতুন করে ভ্রু উঠার সম্ভবনা থাকে। এসব তেলে আছে ভিটামিন-ই এর আদ্রতা যা ভ্রু-এর ঘনত্ব বাড়ায়।

ব্যবহার করুন ডিমের সাদা অংশ
ডিম প্রোটিন ধারণ করে, যা চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং চুল সৃষ্টিকারী কোষের সংখ্যা বৃদ্ধি করে। ডিমের সাদা অংশ ফেটিয়ে ২০ মিনিটের জন্য ভ্রু-তে লাগিয়ে রাখুন।

ভিটামিন ই ক্যাপসুল
এক চামচ ক্যাস্টর অয়েলের সাথে ১টি ভিটামিন-ই ক্যাপসুলের নির্যাস মিশিয়ে নিন। কটন বাডে ক্যাস্টর অয়েল ও ভিটামিন ই-এর মিশ্রণ লাগিয়ে ভ্রুতে হালকা করে ম্যাসাজ করে নিন সারারাতের জন্য। এটি প্রতিদিন ব্যাবহার করলে ২ থেকে ৩ সপ্তাহের মাঝেই ভ্রুতে দেখা যাবে লক্ষণীয় পরিবর্তন। কাঙ্ক্ষিত শেপ না পাবার আগ পর্যন্ত একটানা ব্যবহার করতে পারেন।

পেঁয়াজের রস
পেয়াজের ঝাঁঝালো উপাদান খুব তাড়াতাড়ি ভ্রু গজাতে সাহায্য করবে। পেঁয়াজ ছেঁচে এর রস ভ্রু-এর নীচে তুলো দিয়ে বারবার লাগালে ভ্রু সহজেই বড় হয়।

পরিষ্কার করুন
ভ্রু-এর ত্বকে মৃতকোষ জমে অনেক সময় নতুন করে ভ্রু গজাতে বাঁধা দিতে পারে। সেক্ষেত্রে নরম পুরানো টুথব্রাশ পানিতে ভিজিয়ে নিয়ে তা দিয়ে ভ্রু ভালোভাবে আঁচড়ে নিন, এতে মৃতকোষ পরিষ্কার হয়ে নতুন চুল উঠতে সাহায্য করবে।

- নুসরাত ইসলাম