রবিবার,২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭
হোম / জীবনযাপন / বেতন বাড়ানোর কথা বলতে চান?
০৮/১৭/২০১৭

বেতন বাড়ানোর কথা বলতে চান?

-

কর্মজীবনে প্রায়ই দেখা যায় আপনার কাজের মূল্যায়ন বস করছেন ঠিকই; কিন্তু বেতন বাড়ানোর চিঠিটি আপনার আর পাওয়া হচ্ছে না। এক্ষেত্রে বেতন বাড়ানোর কথাটি আপনাকেই বলতে হবে। সম্প্রতি পে-স্কেল নামক একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের চালানো জরিপে দেখা গেছে যে, বেতন বাড়ানোর দাবি করেছেন এমন কর্মীদের ৭৫ শতাংশই সফলতার মুখ দেখেছেন। এক্ষেত্রে নিচের টিপসগুলো পড়ুন। জেনে নিন কখন, কিভাবে বসকে বলতে হয় পে-হাইক-এর কথা।

সঠিক সময় নির্বাচন করুন
বেতন বাড়ানোর দাবি সঠিক সময় এবং প্রেক্ষিত বুঝে তুলুন। সময়ের আগেই বেতন বাড়ানোর কথা বলতে যাবেন না। বসের মেজাজ বুঝে কথা বলুন, বিশেষ করে যখন তিনি উৎফুল্ল মেজাজে এবং যুক্তি শোনার মুডে থাকবেন তখনই কথা বলুন। আর একটি বিষয় খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তা হলো কোম্পানির বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থা বুঝে দাবি তোলা। কোম্পানি ক্ষতির মুখে থাকলে আপনার দাবি সরাসরি নাকচও হতে পারে।

প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করুন
তথ্য-উপাত্তের ব্যবহার আপনার দাবিকে জোরালো করবে। বেতন বাড়ানোর ক্ষেত্রে আপনার কোম্পানির পলিসি, অতীত রেকর্ড, অন্যান্য কোম্পানিতে একই পদে কর্মীদের বেতনের অঙ্ক ইত্যাদির তথ্য সংগ্রহ করুন। এসব তথ্য আপনার যুক্তিকে জোরালো করবে। এছাড়াও বেতন কতটুকু বাড়িয়ে নেয়া যুক্তিসংগত হবে তার পরিমাণ নির্ধারণেও এসব সহায়ক হবে।

কোম্পানিতে নিজের মূল্য সম্পর্কে নিশ্চিত হোন
বেতন বাড়ানোর দাবি তোলার আগে কোম্পানিতে নিজের মূল্য সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন। কেন কোম্পানি আপনার দাবি মেনে নিবে তা নিজেকে প্রশ্ন করুন। গড়পড়তা মানের কর্মী হলে দাবি নাকচ হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। মনে রাখবেন, আপনার মূল্য কোম্পানির কাছে বেশি হলে তারা আপনার দাবিদাওয়া পূরণে সচেষ্ট থাকবে।

কীভাবে আলোচনা করবেন তা গুছিয়ে নিন
সবরকম প্রস্তুতি নেয়ার পরও আপনার আলোচনা ব্যর্থ হতে পারে শুধুমাত্র সঠিক পরিকল্পনার অভাবে। তাই এক্ষেত্রে হতে হবে কৌশলী। আপনার সব যুক্তিগুলো পয়েন্ট আকারে গুছিয়ে নিন, প্রয়োজনে অনুশীলন করুন। আলোচনায় তথ্য, উপাত্ত ও পরিসংখ্যানের মাধ্যমে উদাহরণ তুলে ধরুন যাতে আপনার যুক্তি জোরালো হয়। বিগত বছরের আপনার বিশেষ অর্জনগুলো বসকে স্মরণ করিয়ে দিন। মনে রাখবেন, আপনার যুক্তিগুলোর পাল্টা যুক্তিও কতৃর্পক্ষের কাছে থাকবে। সুতরাং সেগুলোর জবাবও তৈরি রাখবেন।

ইতিবাচক থাকুন এবং ধন্যবাদ জানান
কতৃর্পক্ষের যে কোনো সিদ্ধান্তের ব্যাপারে ইতিবাচক থাকুন। সিদ্ধান্ত আপনার পক্ষে না-ও আসতে পারে, কিন্তু তাতে অসন্তোষ প্রকাশ করা চলবে না। আলোচনার শুরুতেই প্রয়োজনে কোম্পানি এবং বসের প্রশংসা করুন এবং আপনাকে সময় দেয়ার জন্য ধন্যবাদ জানান। সিদ্ধান্ত আপনার পক্ষে না এলে তার কারণ জানতে চান, কীভাবে আরো ভালো করা যাবে বা কোম্পানির চাহিদা কি, তা জেনে নিন।

নিজেকে অন্যদের চেয়ে এগিয়ে রাখুন
অফিসের অন্যান্য কর্মীদের তুলনায় সবসময় নিজেকে একধাপ এগিয়ে রাখার চেষ্টা করুন। তবে এতে অফিসে সহকর্মীদের সঙ্গে বন্ধুত্বমূলক সম্পর্ক যাতে নষ্ট না হয়। কোম্পানির বিশেষ প্রকল্পগুলোতে নিজ থেকেই দায়িত্ব নেয়ার আগ্রহ দেখান। নেতৃত্ব নিতে শিখুন, মনে রাখবেন, নেতৃত্বের গুণাবলি সম্পন্ন কর্মীর মূল্য কোম্পানির নিকট বরাবরই বেশি।

চাকরি ছাড়ার হুমকি দেয়া থেকে বিরত থাকুন
কখনোই চাকরি ছাড়ার হুমকি দেবেন না, এতে করে কতৃর্পক্ষ আপনার প্রতি বিরূপ হতে পারে এবং আপনার বিপক্ষে যে কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারে। মনে রাখবেন, আপনি যতই ভালো কাজ করুন না কেন, আপনার মনোভাবে দাম্ভিকতা প্রকাশ পেলে তা নিজের জন্যই খারাপ ফল বয়ে আনবে। সঠিক পরিকল্পনা আর কৌশলই পারে আপনার বেতন বাড়ানোর দাবিকে ফলপ্রসূ করতে। কতৃর্পক্ষের সঙ্গে বেতন বাড়ানোর কথা বলার আগে সবরকম পরিস্থিতির জন্য নিজেকে প্রস্তুত রাখুন এবংআত্মবিশ্বাসী থাকুন। কাক্সিক্ষত লক্ষ্য অর্জিত না হলেও হতাশ হবেন না, বরং ভুলগুলো শুধরে নিয়ে নিজেকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যান।

- তানভীর জাহান
ছবিঃ মেহেদী হাসান চৌধুরী