রবিবার,২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮
হোম / সাহিত্য-সংস্কৃতি / উৎসবে উদ্যাপনে আন্তর্জাতিক নারীদিবস
০৩/১৬/২০১৬

উৎসবে উদ্যাপনে আন্তর্জাতিক নারীদিবস

- অনন্যা ডেস্ক

নারীদের আঁধার ভাঙার শপথ
মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক নারী দিবসের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এক সমাবেশে নারীরা এ ঘোষণা দেন। এ সময় তারা নারী-পুরুষের অঙ্গীকারে সমতার বিশ্ব গড়ে তোলারও আহ্বান জানান। আমরাই পারি জোট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত এ সমাবেশে বিভিন্ন নারীনেত্রী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। নারী জাগরণের গান দিয়ে শুরু হয় সমাবেশ। এরপর রাত ১২টা ১মিনিটে মোমবাতি প্রজ্বালন শেষে শপথ নেন তারা। সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, আমরা সব আঁধার ভাঙবো। আমরা অন্ধকার ছাড়িয়ে আলোর দিকে যাচ্ছি।

১৯ নারী মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা
দিবসটি উপলক্ষে ১৯ জন নারী মুক্তিযোদ্ধাকে (বীরাঙ্গনা) আর্থিক সহায়তা ও সম্মাননা দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন। বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এই অনুষ্ঠানে সম্মাননাপ্রাপ্ত প্রত্যেককে সংগঠনের পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে নগদ ৫০ হাজার টাকা, শাড়ি ও চাদর দেওয়া হয়। সম্মাননাপ্রাপ্তরা হলেন নূরজাহান বেগম, মমতাজ বেগম, কাঞ্চনমালা, রাজিয়া খাতুন, নাজমা বেগম (কানন বালা), সালেহা বেগম, পইরবিন নেসা, রমেছা খাতুন, হাবিজা বেওয়া, ফাতেমা বেগম, শেখ ফাতেমা আলী, জাহারা খাতুন, লাইলী বেগম, ময়মুনা বেগম, হাসিনা বানু, সমলা বেওয়া, জোবেদা বেওয়া, সাহারা খাতুন ও করফুলি বেওয়া।

কলসিন্দুর ফুটবল দলের সদস্যদের সম্মাননা
দক্ষিণ এশীয় গেমসে স্বর্ণজয়ী মাবিয়া আক্তার ও মাহফুজা খাতুন এবং এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ টুর্নামেন্টের আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপাজয়ী বাংলাদেশ ফুটবল দলে অংশগ্রহণকারী কলসিন্দুর ফুটবল দলের সদস্যদের সম্মাননা দিয়েছে দুর্নীতিবিরোধী আন্তর্জাতিক সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। ধানমন্ডির রবীন্দ্রসরোবর মুক্তমঞ্চে টিআইবি আয়োজিত দুর্নীতিবিরোধী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে তাদের সম্মাননা দেওয়া হয়।

নারীদের জন্য এক বিকেল আনন্দ
নারীদিবস উদ্যাপনে কনসার্টের আয়োজন করেছিল বেঙ্গল গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ। বিকেল থেকে ‘শিফেস্ট ২০১৬’ নামের এই অনুষ্ঠানে ছিল নাচ, গানসহ মজার সব আয়োজন। তারকাদের উপস্থিতি ও পরিবেশনায় একটা বিকেল ও সন্ধ্যা দারুণ আনন্দে মেতে উঠেছিলেন নারীরা। ধানমন্ডির সুলতানা কামাল মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্স মাঠের এই কনসার্টে আরও গান করেছেন পার্থ বড়ুয়া, কনা, তাহসান ও সায়ান।

‘উৎসবে-পার্বণে, নারী থাকবে সবখানে’
‘আন্তর্জাতিক নারীদিবস’ উপলক্ষে ৭ মার্চ সন্ধ্যায় নারীপক্ষ রবীন্দ্রসরোবরে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এবারের প্রতিপাদ্য ছিল ‘উৎসবে-পার্বণে, নারী থাকবে সবখানে’। ঢাকের বাজনার তালে তালে প্ল্যাকার্ড প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। ঘোষণাপত্র পাঠ করেন নারীপক্ষ’র সদস্য কামরুন নাহার। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সকল কুসংষ্কার, অপচর্চা, অপব্যাখ্যা, পশ্চাৎপদতা ও ভয়-ভীতি থেকে মুক্ত হয়ে, সর্বত্র নারীর অবাধ ও নিরাপদ বিচরণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকার ও প্রশাসনসহ প্রত্যেকে তৎপর হতে আহ্বান জানানো হয়।

হাসি-কান্না-আড্ডায় সাফল্যের গল্প
সোমবার ধানমন্ডির ছায়ানট সংস্কৃতি-ভবন মিলনায়তনে বিকেল সাড়ে চারটায় শুরু হয় প্রথম আলো আয়োজিত নারীদিবসের অনুষ্ঠান। এবারের আয়োজনের বিষয় ছিল ‘আমার কাজ, আমাদের অর্জন’। সেই অনুষ্ঠানে কলসিন্দুরের মেয়েরা, সাফ গেমসে সোনা বিজয়ী দুই নারী আর ভারতে নির্যাতিত আয়শা সিদ্দিকা শোনালেন জীবনযুদ্ধের কথা। সেখানে আরও এসেছিলেন নানা শ্রেণি-পেশার সফল নারীরা। তারুণ্যের বিজয়ের কথা শুনে কখনো অতিথিরা হেসেছেন, কখনো কেঁদেছেন। হাসি-কান্না-আড্ডায় সফলতার গল্প শুনেছেন তাঁরা।