শুক্রবার,২০ অক্টোবর ২০১৭
হোম / ফ্যাশন / ফ্যাশনে নতুন ট্রেন্ড - সিগারেট প্যান্ট
০৫/১৫/২০১৭

ফ্যাশনে নতুন ট্রেন্ড - সিগারেট প্যান্ট

-

গত দু’বছর ফ্যাশনের রাজ্যে বেশ দাপটের সঙ্গেই রাজত্ব করেছে ঢোলাঢালা পালাজ্জো। কিন্তু এবছর দেখা যাচ্ছে নতুনত্ব। পালাজ্জোর পাশাপাশি জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করেছে ‘স্লিম ফিটিং’-এর সিগারেট প্যান্ট। স্লিম নাম শুনে কেউ কেউ চোখ পাকালেও ফর্মাল পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে যাওয়া এই প্যান্টগুলো বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ট্রাউজার বা চুরিদারের মতো পায়ের গোড়ালির কাছে এই প্যান্টগুলো পুরো আটকে থাকে না। বরং হাঁটুর নিচ থেকে গোড়ালি পর্যন্ত ‘স্ট্রেইট’ হয়ে থাকে। আবার পালাজ্জো বা প্যান্টের মতো ঢোলাও নয়।

হাল ফ্যাশনে জনপ্রিয়তা পেলেও মূলত এই প্যান্টের প্রচলন ছিল ১৯৫০ সালের দিকে। পঞ্চাশের দশকের জনপ্রিয় তারকা মেরেলিন মনরো, এলভিস প্রিসলি, সান্ড্রা ডি এই সিগারেট প্যান্টকে লাইমলাইটে নিয়ে আসেন। আর ফ্যাশনের পুরাতন ধারা অনুসারেই আবার দীর্ঘ বিরতির পর ফিরে এসেছে এই প্যান্ট। নারী-পুরুষ উভয়ের মধ্যেই এই প্যান্টের প্রচলন থাকলেও বর্তমানে নারীদের মধ্যেই এর জনপ্রিয়তা বেশি।

শুরুতে শুধু কালো রং-এ এই প্যান্টের জনপ্রিয়তা থাকলেও ধীরে ধীরে নানান রং এমনকি প্রিন্ট ও প্যাটার্নও জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে। আরামদায়ক এই প্যান্টগুলো ক্যাজুয়াল থেকে ফর্মাল যে কোনো স্টাইলের সঙ্গেই মানানসই। শার্ট বা শর্ট টপসের পাশাপাশি ঢোলাঢালা কুর্তির সঙ্গেও মানিয়ে যায় এই প্যান্ট।

তবে সিগারেট প্যান্ট কেনার সময় মাপমতো কেনা জরুরি। কারণ কোমর থেকে পায়ের গোড়ালি পর্যন্ত সঠিক মাপমতো প্যান্ট বেছে নেওয়া না হলে দেখতে বেমানান লাগবে এবং প্যান্ট পরে কম্ফর্টেবলি ওঠা-বসা করতে সমস্যা হবে। সিগারেট প্যান্টের ওপরের দিকটি একটু ঢিলেঢালা হয়ে থাকে। নিচের দিকে মুহুরিটাও একটু চওড়া থাকে। সিগারেট প্যান্ট তুলনামূলক কম লম্বা। এই প্যান্টগুলো নিচের দিকে কিছুটা উঠানো থাকে। অর্থাৎ গোড়ালির নিচে না গিয়ে উপর পর্যন্ত হয়ে থাকে। তাই আপনার উচ্চতার সাথে মানিয়ে এই প্যান্ট তৈরি করা বা কেনা প্রয়োজন। যাদের উচ্চতা কিছুটা কম তাদের উচিত কিছুটা খাটো প্যান্ট বেছে নেওয়া। এর সঙ্গে পরুন মানানসই হাইহিল। দেখতে বেশ স্মার্ট এবং ফ্যাশনেবল লাগবে।

একই ধরনের অন্য এক স্টাইলের প্যান্ট রয়েছে যা পেনসিল প্যান্ট নামে পরিচিত। পেনসিল প্যান্ট আগাগোড়াই কিছুটা আঁটসাঁট হয়ে থাকে। পেনসিল প্যান্ট কিশোরীরা বেশি পছন্দ করছে। তবে যাদের স্বাস্থ্য ভালো, তাদের এই প্যান্ট না পরাই ভালো।

ওয়েস্টার্ন বা ফর্মালের পাশাপাশি এখন ট্র্যাডিশনাল পোশাকের সঙ্গেও এই ধাঁচের প্যান্ট পরার প্রচলন শুরু হয়েছে। আনারকলি বা কামিজের সঙ্গে মানানসই সিগারেট প্যান্ট বেছে নিচ্ছেন অনেকেই। এক দিকে উঁচু করে চেরা ফ্রকের সঙ্গেও এই প্যান্ট মানিয়ে যায়।

প্রিন্ট আর প্যাটার্নের পাশাপাশি প্যান্টে এম্ব্রয়ডারি, ব্লক, স্টোন ওয়ার্কের ব্যবহারও চোখে পরে। নিজের পছন্দ এবং শারীরিক গঠনের সঙ্গে মানানসইভাবে তৈরি প্যান্ট বেছে নিয়ে যে কোনো পোশাকের সঙ্গেই তা পরা যেতে পারে।

- সামিরা আহসান