বুধবার,২৬ Jul ২০১৭
হোম / ফিচার / অনন্যা শীর্ষদশ সম্মাননা ২০১৬
০৫/১০/২০১৭

অনন্যা শীর্ষদশ সম্মাননা ২০১৬

-

গত ৬ মে ২০১৭ তারিখ সকালে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হলো অনন্যা শীর্ষদশ সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী। বিশেষ অতিথির আসনে ছিলেন বিশিষ্ট রাষ্ট্রচিন্তক, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. রওনক জাহান এবং সংসদ সদস্য কবি কাজী রোজী। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন অনন্যা পাক্ষিক অনন্যা’র সম্পাদক ও প্রকাশক তাসমিমা হোসেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সংগীত পরিবেশনার পর ছিল সাধনা’র নৃত্যানুষ্ঠান। এরপর শীর্ষদশ সম্মাননা প্রাপ্তদের নিয়ে নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র দেখানো হয়।

এ বছর ‘অনন্যা শীর্ষ দশ ২০১৬’ সম্মাননা পেলেন, সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. পারভীন হাসান, নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী, প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. জেবা ইসলাম সিরাজ, অভিনয়শিল্পী সাবেরী আলম মোতাহের, শোলাশিল্পী নিশা রানী মালাকার, প্রতিবন্ধী নারী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন (ডাব্লিউডিডিএফ)-এর নির্বাহী পরিচালক আশরাফুন নাহার মিষ্টি, আদিবাসী আধিকার কর্মী বাসন্তী মুরমু, মুক্তিযুদ্ধ-গবেষক সুরমা জাহিদ, বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন ও নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা চকসুবল গ্রামের বিস্ময়কন্যা ঘোড়সওয়ার তাসমিনা আক্তার।

প্রধান অতিথির ভাষণে কৃষি মন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেন, জঙ্গিবাদ গোটা পৃথিবীকেই তছনছ করে ফেলার জিঘাংসা নিয়ে নেমেছে। বাংলাদেশে কোনো কোনো ক্ষেত্রে নারী ও শিশুদের এতে আত্মঘাতী কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। জঙ্গিরা ঠিক করে দিচ্ছে, তাদের কেউ নিহত হলে তার স্ত্রীর কার সঙ্গে বিয়ে হবে। নারীরা কী হাতবদলের জিনিস? এমনধারা উন্মার্গ চিন্তার বিরুদ্ধে পৃথিবীর শান্তিকামী মানুষদের একত্রে রুখে দাঁড়াতে হবে। অন্তত একটি জায়গায় আমরা একসঙ্গে কাজ করতে পারি।

বিশেষ অতিথির ভাষণে রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. রওনক জাহান বলেন, রাজনীতিতে প্রয়োজন হয় অনেক টাকা পয়সা ও পেশীশক্তির। সেটা নারীদের নেই বলে তারা মূলধারার রাজনীতিতে সেভাবে আসতে পারছেন না। এই প্রতিকূলতা ও চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে কোনো কোনো নারী অনন্য অবদান রাখছেন, সেটা গর্বের বিষয়। অনন্যা শীর্ষদশ সম্মাননা প্রাপ্ত নারায়ণগঞ্জের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী তার জলন্ত উদাহরণ। আমি অগ্নিকন্যা মতিয়া চৌধুরীর কথা কয়েকদশক আগেই উল্লেখ করেছি।

কবি কাজী রোজী এমপি বলেন, নারীদের সবাই সমান সুযোগ পান না। এটা তাদের দোষ নয়, অন্বেষণের সমস্যা। অনন্যা সম্পাদক তাসমিমা হোসেন আলোকিত নারীদের খুঁজে খুঁজে বের করে সম্মানিত করছেন, তাকে বলব তিনি হচ্ছেন শীর্ষ অদম্য।

অনন্যা’র সম্পাদক ও প্রকাশক তাসমিমা হোসেন বলেন, নব্বইয়ের দশকে তসলিমা নাসরিনের মাথার দাম যখন ঘোষিত হলো, তখন থেকে ওম্যান অব দ্য ইয়ার সম্মাননা প্রদানের কথা আমরা ভাবি, যা পরে অনন্যা শীর্ষ দশ হয়। আগে সারা বছরের উল্লেখযোগ্য কর্মকাণ্ডের জন্য ১০জন নারী খুঁজে পাওয়া যেত না। এখন অনেক বেশিসংখ্যক যোগ্য ও কৃতী নারীকে আমরা পাই। এ পর্যন্ত ২৪০ জন নারীকে আমরা সম্মাননা দিতে পেরে আনন্দিত ও গর্বিত।

অনন্যা শীর্ষদশ ২০১৬ সম্মাননাপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. পারভীন হাসান বলেন, অদম্য সাহসী তাসমিনার এই বয়সেই যে দৃঢতা তা দেখার মতো। সে অনেক দূরে যাবে। বাংলাদেশে এমন অনেক নারী আছে যারা সুযোগ পান না। তাদের সুযোগের পথ করে দিতে হবে।

সাবিনা খাতুন বলেন, আমি গর্বিত এ সম্মাননা পেয়ে। মেয়ে হিসেবে ফুটবল খেলাটা খুবই অপ্রত্যাশিত। ছেলেরা বাজে কথা বলবেই, তাদের কথা শুনে থামলে চলবে না।

তাসমিনা আক্তার বলেন, আমার ঘোড়ায় চড়া নিয়ে অনেকে অনেক কথা বলেছে। বলেছে, এত বড় মেয়ে ঘোড়ায় চড়ে। কিন্তু আমি কারো কথা কেয়ার করি না। অনেকবার ঘোড়া থেকে পড়ে গেছি। ব্যাথা পাইছি। হাসপাতালে গেছি। তারপরও ঘোড়া চালানো বাদ দেইনি।

উল্লেখ্য, এবছর অনন্যা শীর্ষদশ কফি টেবিল বুকের তৃতীয় সংস্করণ প্রকাশিত হয়। বইটি সারাবছর অনন্যার অফিস থেকে সংগ্রহ করা যাবে।