মঙ্গলবার,২২ অগাস্ট ২০১৭
হোম / খাবার-দাবার / শবে বরাতের রেসিপি - রীপা হক
০৫/১০/২০১৭

শবে বরাতের রেসিপি - রীপা হক

-

নারিকেলের লাড্ডু

উপকরণ
নারিকেল গুঁড়া বা করানো- দেড় কাপ
তরল দুধ- ১কাপ
কনডেন্সড মিল্ক- আধা কাপ
ঘি- ১ টেবিল চামচ
নারিকেল গুঁড়া- পরিমানমতো (সাজানোর জন্য)
রোজ সিরাপ বা ফুড কালার সামান্য

প্রণালি
একটি ননস্টিক প্যানে ঘি দিয়ে চুলায় অল্প আঁচে বসায়ে নারিকেল গুঁড়া বা কুরানো দিয়ে সামান্য ভেজে নিতে হবে।

এবার তরল দুধ দিয়ে পরে কনডেন্সড মিল্ক দিয়ে মাঝারি আঁচে সবকটি উপকরণ মিশে যাওয়া পর্যন্ত জ্বাল দিন। অনবরত নাড়তে হবে যেন হাঁড়িতে বা প্যানে লেগে না যায়।

এরপর চুলার আঁচ কমিয়ে এলাচ গুঁড়া ও রোজ সিরাপ বা ফুড কালার দিয়ে ঘন ঘন নেড়ে মিশ্রণটি প্যানের থেকে ছেড়ে এলে বা আঠালো হয়ে এলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।

মিশ্রণটি হাল্কা গরম থাকা অবস্থায় হাতে ঘি মাখিয়ে গোল গোল বল/ লাড্ডু বানিয়ে নিন। এবার লাড্ডুগুলোকে নারিকেল গুঁড়াতে গড়িয়ে নিতে হবে। ঠান্ডা হলে শক্ত হওয়ার জন্য রেফ্রিজারেটরে ১ ঘণ্টা রাখুন। ১ ঘণ্টা পর পরিবেশনের পাত্রে নিয়ে পরিবেশন করুন মজার নারিকেলের লাড্ডু।

আমের সন্দেশ

উপকরণ
তরল দুধ- দেড় লিটার
সিরকা বা লেবুর রস- ৩/৪ টেবিল চামচ
পানি- ৩/৪ টেবিল চামচ
ছানা- দেড় লিটার দুধের ছানা
পাকা আমের পিউরে- ৩/৪ কাপ
গুঁড়া চিনি- ১/৩ কাপ বা স্বাদ অনুযায়ী
ফ্রেশক্রিম- আধা কাপ
এলাচ গুঁড়া সামান্য
বাদাম কুচি/ সিলভার ফয়েল সামান্য

প্রণালি
একটা পাতিলে দুধ নিয়ে চুলায় দিন, ফুটে উঠা মাত্রই সিরকার সঙ্গে সমান পরিমাণ পানি মিশিয়ে দুধের মধ্যে দিন। দুধ ফেটে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।

দুধের মিশ্রণটি একটি কাপড় বা ছাঁকনিতে ঢেলে নিন। পানি দিয়ে আলতো করে ধুয়ে নিন। ছানা ২ ঘণ্টা ঝুলিয়ে রেখে ভালোভাবে পানি ঝরিয়ে নিন।

একটি ট্রেতে ছানা নিয়ে হাত দিয়ে ভালোভাবে মসৃণ করে মথে নিন ।

একটি ননস্টিক ফ্রাইপ্যানে ছানা, চিনি এবং গুঁড়া দুধ একসঙ্গে নিয়ে চুলায় অল্প আঁচে দিয়ে কয়েক মিনিট জ্বাল দিন । এরপর আমের পিউরে ও এলাচ গুঁড়া দিয়ে ঘন ঘন নাড়ুন, খেয়াল রাখতে হবে যেন নিচে লেগে পুড়ে না যায় ।

মিশ্রণটি শুকিয়ে প্যান থেকে আলাদা হয়ে আসতে শুরু করলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।

একটি ট্রেতে সামান্য ঘি মেখে সন্দেশের মিশ্রণ ঢেলে উপরে বাদাম কুচি দিয়ে হাত দিয়ে চেপে চেপে সমান করে নিন। ঠান্ডা হলে কেটে সিলভার ফয়েল (ইচ্ছা) দিয়ে পরিবেশন করুন মজার আমের সন্দেশ।

গোলাপ ফিরনি

উপকরণ
দুধ- ১লিটার
পোলাওর চাল- ১/৪কাপ
চিনি পরিমান মতো
বাদাম বাটা- ১ টেবিল চামচ
গুঁড়োদুধ বা ফ্রেশ ক্রিম- ১ কাপ
রোজ সিরাপ ১ টেবিল চামচ বা গোলাপজল ১/২ চা-চামচ
রোজ এসেন্স- ২ ফোঁটা
লাল রং সামান্য
কাঠ ও পেস্তাবাদাম কুচি সামান্য
শুকনা গোলাপ পাপড়ি কয়েকটা (ইচ্ছানুযায়ী)


প্রণালি
চাল ধুয়ে ২/৩ ঘণ্টা ভিজিয়ে নিয়ে পানি ফেলে হাত দিয়ে কচলিয়ে ভেঙে নিন।

একটি পাত্রে দুধ ও এলাচ দিয়ে চুলায় দিয়ে জ্বাল দিন। ফুটে উঠেলে ভাঙা চাল দিয়ে নেড়ে নেড়ে রান্না করুন। অনবরত নাড়তে থাকুন যেন পাতিলের নিচে লেগে না যায়।

চালটা প্রায় সিদ্ধ হয়ে এলে গুঁড়া দুধ বা ফ্রেশ ক্রিম দিয়ে চুলার আঁচ কমিয়ে দিয়ে এলাচগুলো তুলে নাড়তে থাকুন। বাদাম বাটা, চিনি ও রোজ সিরাপ দিয়ে অনবরত নাড়তে থাকুন।

এবারে নাড়তে নাড়তে ফিরনি ঘন হয়ে এলে মিষ্টি দেখে নামিয়ে সামান্য ঠান্ডা করে, বাদামকুচি ও শুকনা গোলাপ পাপড়ি দিয়ে সাজিয়ে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

মুগডালের হালুয়া

উপকরণ
মুগডাল- দেড় কাপ
দুধ- ২ কাপ
ঘনদুধ/ফ্রেশ ক্রিম- ১ কাপ
চিনি- ১ কাপের চেয়ে সামান্য কম বা স্বাদ অনুযায়ী
এলাচ গুঁড়া- ১/৪ চা-চামচ
জাফরান সামান্য
ঘি- ২/৩ কাপ
পছন্দমতো বাদাম কুচি সামান্য
ড্রাই ফ্রুট সামান্য

প্রণালি
মুগডাল সামান্য ভেজে নিয়ে ১ কাপ দুধ ও সামান্য পানি দিয়ে সিদ্ধ করে নিন। সিদ্ধ মুগডাল বেøন্ড করে বা পাটায় বেটে নিন।
বাকি দুধ হাল্কা গরম করে জাফরান ভিজিয়ে রাখুন।

এবার ননস্টিক প্যানে ঘি গরম করে তাতে ডাল পেস্ট দিয়ে অল্প আঁচে সুন্দর বাদামি করে ভাজুন। তেলতেলে হয়ে এলে এলাচগুঁড়া ও চিনি দিয়ে নাড়ুন।

চিনি গলে মিশ্রণটি দলাদলা হয়ে এলে গরম দুধ দিয়ে নাড়তে থাকুন। মিশ্রণটি ঘন হয়ে ঘি উপরে উঠে এলে একটা বাটিতে ঘি দিয়ে তাতে ঢেলে নিন। ঠান্ডা হলে উপুড় করে ঢেলে উপরে পছন্দমতো বাদাম কুচি ও ড্রাইফ্রুট দিয়ে পরিবেশন করুন দারুণ মজার মুগডালের হালুয়া।

ক্লাসিক গ্রিক আমন্ড হালুয়া

উপকরণ
চিনি- আধা কাপ (চিনি স্বাদানুযায়ী কমবেশি করতে পারেন)
পানি- ৩ কাপ
দারুচিনি- ১ টুকরা
লবঙ্গ- ১টা
লেমন রাইন্ড- ১ টুকরা
লেবুর রস- ১ চা-চামচ
অলিভ অয়েল- আধা কাপ
সুজি- ১ কাপ
কাঠবাদাম/ আমন্ড (আধা ভাঙা)- আধা কাপ
কিশমিশ বা ড্রাই ফ্রুট সামান্য

প্রণালি
প্রথম একটা পাতিলে পানি, চিনি, দারুচিনি, লবঙ্গ, লেবুর/ কমলা ও লেবুর রস দিয়ে চুলায় অল্প আঁচে বসিয়ে চিনি গলে একটা বলক উঠার পর নামিয়ে সামান্য ঠান্ডা করে দারুচিনি, লবঙ্গ, লেমন রাইন্ড তুলে ফেলুন।

একটা কেকের মোল্ডে বা বাটিতে হাল্কা করে তেল লাগায়ে নিন।

একটি ননস্টিক প্যানে মাঝারি তাপে চুলায় বসায়ে অলিভ অয়েল নিন। এবার বাদাম (ভাঙা) দিয়ে হাল্কা বাদামি করে ভাজে নিন।

সুজি দিয়ে হাল্কা সোনালি করে ভেজে নিন।

গরম সুজিতে আস্তে আস্তে সিরা দিয়ে নাড়তে থাকুন। ড্রাই ফ্রুট দিয়ে দিন।

হালুয়া মধ্যম ঘন হয়ে এলে নামিয়ে নিয়ে তেল লাগানো বাটিতে ঢেলে উপরে সমান করে ঠান্ডা করে নিন। এবার পরিবেশনের পাত্রে ঢেলে পরিবেশন করুন মজার গ্রিক আমন্ড হালুয়া।

শাহী হালুয়া

উপকরণ
সুজি- ১৫০ গ্রাম
তেল- ৮ টেবিল চামচ
দুধ- ৩ কাপ
চিনি- ১৭৫ গ্রাম
ডিম- ৩টা
নারিকেল গুঁড়া- ৩টেবিল চামচ
এলাচি- ১ টা
এলাচগুঁড়া সামান্য
ঘি- ২টেবিল চামচ
ড্রাই ফ্রুট সামান্য


প্রণালি
প্রথমে পাতিলে তেল দিয়ে এলাচি চিরে দিতে হবে। এবার সুজি দিয়ে খুব সামান্য ভাজতে হবে।

২ কাপ দুধ দিয়ে মধ্যম আঁচে রান্না করতে হবে। মাঝে মাঝে নেড়ে দিন যেন তলার লেগে না যায়। এবার চিনি দিন।

বাকি দুধে ফেটানো ডিম, এলাচগুঁড়া ও নারিকেল দিয়ে ফেটে সুজির মিশ্রণটিতে দিন। ঘন হয়ে এলে অনবরত নাড়তে থাকুন। এবার ঘি দিন।

তেল উপরে উঠলে চুলা থেকে নামিয়ে সার্ভিং ডিশে ঢেলে উপর সমান করে ঠান্ডা করতে দিন। হালুয়া কেটে উপরে ড্রাই ফ্রুট দিয়ে উপভোগ করুন মজার শাহী হালুয়া।