শুক্রবার,২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮
হোম / সাহিত্য-সংস্কৃতি / ভারতের খাজুরাহো নৃত্য সমারোহে সাধনার মণিপুরী নৃত্যনাট্য
০৩/১৬/২০১৬

ভারতের খাজুরাহো নৃত্য সমারোহে সাধনার মণিপুরী নৃত্যনাট্য

- অনন্যা ডেস্ক

সম্প্রতি দক্ষিণ এশীয় সংস্কৃতি উন্নয়ন কেন্দ্র ‘সাধনা’ ভারতের বৃহত্তম এবং সবচাইতে মর্যাদাসম্পন্ন নৃত্যোৎসবে সাফল্যের সাথে অংশগ্রহণ করে দেশে ফিরে এসেছে। খজুরাহো নৃত্য সমারোহে সাধনা গত ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৬ তে মণিপুরী নৃত্যনাট্য ‘রাধারাণীর অষ্টপ্রহর’ উপস্থাপন করে। নৃত্যনাট্যটি পরিচালনা করেছেন সুইটি দাস চৌধুরী। প্রযোজনাটি দর্শক এবং সমালচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে। অনেকে সাধনার প্রদর্শনীতে মুগ্ধ হয়ে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন। ক্যাব্যময়তা এবং শিল্পের অসামান্য কম্বিনেশনে মুগ্ধ হয়ে দর্শকরা হাততালিতে ফেটে পড়েন।

গত ৪২শ বছর ধ’রে, মধ্যপ্রদেশ সরকার পরিচালিত ওস্তাদ আলাউদ্দিন খান সংগীত এবং কলাকেন্দ্র দ্বারা আয়োজিত এই নৃত্য উৎসবে এই প্রথমবার বাংলাদেশের কোনো সাংস্কৃতিক সংগঠন অংশগ্রহণ করেছে। সাধনার ১৪জন নৃত্যশিল্পী এই আয়োজনে অংশ নেন। তার মধ্যে সিলেটের কমলগঞ্জের ৪ জন শিল্পী উপস্থিত ছিলেন।

নৃত্য পরিবেশনা ছাড়া, সাধনা’র শৈল্পিক নির্দেশক লুবনা মারিয়াম উৎসবে আয়োজিত ‘কলাবার্তা’ নামক আলোচনা সভায় বাংলাদেশের নৃত্যচর্চাসংক্রান্ত বক্তৃতা করেন। সাথে সাধনা’র অমিত চৌধুরীর পরিচালনায় নৃত্য প্রদর্শিত হয়।

বাংলাদেশের প্রাণবন্ত অংশগ্রহণের ফলে আয়োজক ম-লি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে আসছে বছর খজুরাহো নৃত্যোৎসবে বাংলাদেশের নৃত্যচর্চা উৎসবের ‘মূলভাব’ (ঞযবসব) হবে এবং বাংলাদেশের নাচ এবং সংগীতর্চ্চাকে নিয়ে একটি বিশেষ প্রদর্শনির আয়োজন করা হবে।